fbpx

ফিফা অনূর্ধ্ব-১৭ মহিলা বিশ্বকাপের বিভিন্ন পরিসংখ্যান

বিশ্বকাপের ধারাবাহিক চার দল:

বিশ্বকাপের ধারাবাহিক চার দল:

বয়স ভিত্তিক এই মহিলা বিশ্বকাপের জন্মলগ্ন থেকে অংশগ্রহণ করে আসছে জার্মানি, কানাডা, জাপান, নিউজিল্যান্ড। এই চার দল ধারাবাহিকতার সঙ্গে প্রতিযোগীতা খেলার যোগ্যতা অর্জন করলেও সাফল্যের বিচারে অনেকটাই পিছিয়ে রয়েছে। এই চার দলের মধ্যে একমাত্র জাপান এক বার চ্যাম্পিয়ন হয়েছে।

অনূর্ধ্ব-১৭ মহিলা বিশ্বকাপের অতীতের বিজয়ীরা:

অনূর্ধ্ব-১৭ মহিলা বিশ্বকাপের অতীতের বিজয়ীরা:

এই প্রতিযোগীতার সফলতম দল উত্তর কোরিয়া। এশিয়ার এই দলটি অনূর্ধ্ব-১৭ মহিলা বিশ্বকাপ জিতেছে। উদ্বোধনী সংস্করণ ২০০৮ এবং ২০১৬ সালে চ্যাম্পিয়ন হয় উত্তর কোরিয়া। এ ছাড়া এক বার করে জিতেছে দক্ষিণ কোরিয়া, ফ্রান্স, জাপান এবং স্পেন।

মোট গোল:

মোট গোল:

অতীতের প্রতিটি সংস্করণ মিলিয়ে মোট ৬৬০টি গোল হয়েছে এই ইভেন্টে। টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় সংস্করণ যেটি ত্রিনিদাদ অ্যান্ড টোবাগোয় আয়োজিত হয়েছিল সেটিতে রেকর্ড ১২৫টি গোল হয়েছিল। এ ছাড়া ২০০৮ সালে উদ্বোধনী সংস্করণে গোল হয় ১১৩টি, ২০১২ সংস্করণে গোল হয় ১১৯টি, ২০১৪-এর সংস্করণে গোল হয় ১১৩টি, ২০১৬-এর সংস্করণে গোল হয় ১০৪টি এবং গত বার অর্থাৎ ২০১৮-এর সংস্করণে গোট হয় ৮৬টি, যা এই প্রতিযোগীয়ার কোনও এক সংস্করণে সব থেকে কম গোল।

প্রতিযোগীতার দ্রুততম গোল:

প্রতিযোগীতার দ্রুততম গোল:

ফিফা অনূর্ধ্ব-১৭ মহিলা বিশ্বকাপের ইতিহাসে দ্রুততম গোলটি আসে ১৮ সেকেন্ডে। গোলটি করেছিলেন নিউজিল্যান্ডের গ্রেস উইসনিওস্কি। ২০১৮ সালে প্রতিযোগীতার আগের সংস্করণে কানাডার বিরুদ্ধে এই গোলটি করেছিলেন তিনি।

এক ম্যাচে ব্যক্তিগত সর্বাধিক গোল এবং প্রতিযোগীতায় সর্বাধিক গোল:

এক ম্যাচে ব্যক্তিগত সর্বাধিক গোল এবং প্রতিযোগীতায় সর্বাধিক গোল:

এক ম্যাচে এই ইভেন্টে ব্যক্তিগত সর্বাধিক গোল ৫টি। স্পেনের লরেনা নাভারো এবং নাইজেরিয়ার চিনওয়েন্দু থিজুও একটি ম্যাচে পাঁচ গোল করে করেছেন যা এই প্রতিযোগীতায় এখনও সর্বাধিক গোলের রেকর্ড। এই ইভেন্টে সর্বাধিক আত্মঘাতী গোলও পাঁচটি। ২০১০ সালে গাম্বিয়া নিজেদের জালেই দুই বার বল জড়িয়ে দিয়েছিল। ফ্রান্সের বিরুদ্ধে সেই ম্যাচে ২-১০ গোলে পরাজিত হয়েছিল গাম্বিয়া।

দর্শকের নিরিখে সফলতম বিশ্বকাপ:

দর্শকের নিরিখে সফলতম বিশ্বকাপ:

দর্শক সংখ্যার নীরিখে সফতম বিশ্বকাপ নিঃসন্দেহে ২০১৪-এর সংস্করণ। ওই বছর কোস্টা রিকায় আয়োজিত হয়েছিল ফিফা অনূর্ধ্ব-১৭ মহিলা বিশ্বকাপ। ওই প্রতিযোগীতায় মাঠ ভরিয়েছিলেন মোট ২৮৪৩২০ জন সমর্থক, প্রতি ম্যাচের গড় দর্শকসংখ্যা ছিল ৮৮৮৫ জন।

ফিফা অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপ ২০২২ সম্পর্কে কিছু তথ্য:

ফিফা অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপ ২০২২ সম্পর্কে কিছু তথ্য:

ফিফা অনূর্ধ্ব-১৭ মহিলা বিশ্বকাপ এই বছরই প্রথম ভারতে আয়োজিত হচ্ছে। এ বারের প্রতিযোগীতা আয়োজিত হচ্ছে তিনটি শহরে। আয়োজনের দায়িত্ব পেয়েছে ভুবনেশ্বর, নভি মুম্বই এবং গোয়ার ফতোরদা। মোট তিনটি দেশের কাছে এটিই প্রথম বয়স ভিত্তিক ফিফা টুর্নামেন্ট হতে চলেছে। আয়োজক দেশ ভারাত ছাড়া বাকি দু’টি দল মরক্কো এবং তানজানিয়া। ১১ অক্টোবর থেকে শুরু হতে চলা এই প্রতিযোগীতা চলবে ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত।

Source link

Leave a Reply